শনিবার, ২২ জুন, ২০২৪

একযুগ পর কোহলি কীর্তিতে বিশ্বকাপের ফাইনালে ভারত

একযুগ পর কোহলি কীর্তিতে বিশ্বকাপের ফাইনালে ভারত

এক ম‍্যাচে কত রেকর্ড নিজের করে নিলেন বিরাট কোহলি। ক্রিজে যাওয়ার পর থেকে দারুণ আস্থায় খেলতে থাকা এই টপ অর্ডার ব‍্যাটসম‍্যানের হাতে ধরা দিল আরেকটি বড় অর্জন। ইতিহাসের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডেতে করলেন ৫০ সেঞ্চুরি। আর কোহলির কীর্তিতেই এক যুগ পর ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠলো ভারত।

বিরাট কোহলির ইতিহাস গড়া শতক ও শ্রেয়াস আইয়ারের বিধ্বংসী শতকে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৩৯৭ রানের বিশাল সংগ্রহ পায়  স্বাগতিকরা। পাহাড়সম লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ড্যারেল মিচেলের শতকে লড়াই চালিয়ে যায় নিউজিল্যান্ড। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মোহাম্মদ শামির দুর্দান্ত বোলিংয়ে ৩২৭ রানে থামে কিউইরা। ফলে ৭০ রানের জয়ে দীর্ঘ ১২ বছর পর ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে ভারত।   

৩৯৮ রানের লক্ষ্য এর আগে বিশ্বকাপের ইতিহাসে কেউ তাড়া করে জিততে পারেনি। ব্ল্যাকক্যাপসদের সামনে ইতিহাস রচনার হাতছানি ছিল। সেই লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই মোহাম্মদ শামির বোলিং তোপে দুই ওপেনারকে হারায় নিউজিল্যান্ড। ব্যাটিং পাওয়ার প্লেতে ২ উইকেট হারিয়ে ৪৬ রান তুলে কিউইরা। তৃতীয় উইকেট জুটিতে দলের হাল ধরেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ও ড্যারেল মিচেল। 

ভারতীয় বোলারদের উপর মিডেল ওভারে রীতিমত চড়াও হন দুই কিউই টপ অর্ডার ব্যাটার। ৩৯ রানে দুই উইকেট হারানো দলকে খাদের কিনারা থেকে টেনে তুলে ঝড়ো ১৮১ রানের জুটি গড়ে নিউজিল্যান্ড শিবিরে আশার আলো দেখান মিচেল ও উইলিয়ামসন। স্বাগতিক বোলাররা যখন চাপে ছিলেন ঠিক সেই মুহূর্তে দলের ত্রাণকর্তা হয়ে হাজির হন পেসার মোহাম্মদ শামি। 

ইনিংসের ৩৩তম ওভারে কেন উইলিয়ামসনকে ফিরিয়ে সেই ওভারে জোড়া আঘাত হানেন শামি। আর তাতেই কিউইদের শেষ আশাটাও এক প্রকার ফুরিয়ে যায়। তবে পঞ্চম উইকেট জুটিতে গ্লেন ফিলিপস ও মিচেল ৭৫ রানের জুটি গড়ে আবারো কিছুটা আশা জাগালেও শেষ পর্যন্ত তা আর সম্ভব হয় নি।

ভারতীয় বোলারদের তোপে ৩২৭ রানে থামে নিউজিল্যান্ড। ফলে ৭০ রানের জয়ে বিশ্বকাপে টানা দশ ম্যাচ জিতে ফাইনাল নিশ্চিত করল রোহিত শর্মার দল। ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ৭টি উইকেট নেন শামি। কিউইদের ১১৯ বলে ১৩৪ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন মিচেল।

সম্পাদক : জোবায়ের আহমেদ নবীন