শনিবার, ২২ জুন, ২০২৪

সাকিবের ব্যাটে প্লে-অফ নিশ্চিত করলো রংপুর

সাকিবের ব্যাটে প্লে-অফ নিশ্চিত করলো রংপুর

সাকিব আল হাসানের ব্যাটিং নৈপুন্যে প্রথম দল হিসেবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট দশম আসরের প্লে-অফ নিশ্চিত করেছে রংপুর রাইডার্স। আজ নিজেদের দশম ম্যাচে রংপুর ১৮ রানে হারিয়েছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে। এই জয়ে ১০ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষস্থান ধরে রেখে আগেভাগেই প্লে-অফ নিশ্চিত করলো সাকিবের রংপুর। ১০ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের পঞ্চমস্থানে থেকেও প্লে-অফে দৌড়ে আছে চট্টগ্রাম।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে স্বাগতিকদের বিপক্ষে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নামা রংপুরকে ২৯ বলে ৩৩ রানের সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার রনি তালুকদার ও দক্ষিণ আফ্রিকার রেজা হেনড্রিক্স। এরমধ্যে ২টি করে চার-ছক্কায় ১৯ বলে ২৫ রান করে পেসার শহিদুল ইসলামের বলে সাজঘরে ফিরেন রনি।

এরপর রেজাকে ৪ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্রান্ডন কিংকে ২ রানে আউট করেন ক্যারিবীয় পেসার রোমারিও শেফার্ড। পাঁচ নম্বরে ৫ রানে বিদায় নেন অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান।

৭১ রানে ৪ উইকেট পতনের পর রংপুরের হাল ধরেন সাকিব ও মাহেদি হাসান। ১৪তম ওভারে জিয়াউর রহমানের বলে টানা তিন ছক্কা মারেন মাহেদি। পরের ওভারে এবারের আসরে টানা দ্বিতীয় হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন ৩৩ বল খেলা সাকিব।

১৭তম ওভারে ওমানের পেসার বিলাল খানের বলে বোল্ড হন ৪টি ছক্কায় ১৭ বলে ৩৪ রান করা মাহেদি। ১৯তম ওভারে শেফার্ডের শিকার হবার আগে ৫টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৩৯ বলে ৬২ রান করেন সাকিব। মাহেদি-সাকিবের ৩৪ বলে ৬৮ রানের জুটিতে বড় সংগ্রহের পথ পায় রংপুর।

শেষ দিকে শামিম হোসেনের ১টি করে চার-ছক্কায় ৯ বলে ১৭ রানের সুবাদে ৮ উইকেটে ১৮৭ রানের সংগ্রহ পায়  রংপুর। চট্টগ্রামের শেফার্ড ৩টি, শহিদুল-শাকিল ২টি করে উইকেট নেন।

জবাবে খেলতে নেমে রংপুরের দক্ষিণ আফ্রিকান পেসার ডোয়াইন প্রিটোরিয়াসের তোপের মুখে পড়ে ৩২ রানে ৩ উইকেট হারায় চট্টগ্রাম। তানজিদ হাসানকে ১৩, অস্ট্রেলিয়ার জশ ব্রাউনকে ৪ ও সৈকত আলিকে ৯ রানে আউট করেন প্রিটোরিয়াস।

চতুর্থ উইকেটে ৩৯ বলে ৪৫ রানের জুটিতে শুরুর ধাক্কা সামাল দেন নিউজিল্যান্ডের টম ব্রুস ও অধিনায়ক শুভাগত হোম। ১২তম ওভারে দুই সেট ব্যাটার ব্রুস ও শুভাগতকে বিদায় দেন স্পিনার মাহেদি। ১টি করে চার-ছক্কায় ব্রুস ২৪ বলে ২৪ এবং ৩টি বাউন্ডারিতে ১৯ বলে ২১ রান করেন শুভাগত।

৭৮ রানে ৫ উইকেট হারানো চট্টগ্রামকে লড়াইয়ে ফেরানোর চেষ্টা করেন শেফার্ড ও জিয়াউর রহমান। জুটিতে ২৬ বলে ৪০ রান যোগ হবার পর ১টি করে চার-ছক্কায় ১৫ রান করা জিয়াকে থামান পেসার হাসান মাহমুদ।

জিয়া ফেরার পর রংপুরের বোলারদের উপর চড়াও হয়ে  মাত্র ২১ বলে হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন শেফার্ড। কিন্তু শেফার্ডে ঝড়ো হাফ-সেঞ্চুরিতেও হার এড়াতে পারেনি চট্টগ্রাম। ৬ উইকেটে ১৬৯ রান করে ম্যাচ হারে চট্টগ্রাম। ৬টি ছক্কা ও ৫টি চারে ৩০ বলে অপরাজিত ৬৬ রান করেন শেফার্ড। রংপুরের প্রিটোরিয়াস ১৪ রানে ৩ এবং মাহেদি ১৭ রানে ২ উইকেট নেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

রংপুর রাইডার্স : ১৮৭/৮, ২০ ওভার (সাকিব ৬২, মাহেদি ৩৪, শেফার্ড ৩/২৭)।

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স : ১৬৯/৬, ২০ ওভার (শেফার্ড ৬৬*, ব্রুস ২৪, প্রিটোরিয়াস ৩/১৪)।

ফল : রংপুর রাইডার্স ১৮ রানে জয়ী।

ম্যাচ সেরা: মাহেদি হাসান (রংপুর রাইডার্স)।

সম্পাদক : জোবায়ের আহমেদ নবীন